1. amarcampus24@gmail.com : admin2020 :
করোনাকালে শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার গঠনে করণীয় - AmarCampus24
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫০ পূর্বাহ্ন

করোনাকালে শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার গঠনে করণীয়

আমার ক্যম্পাস/ ঢাকা
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৭ আগস্ট, ২০২০
student with book

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ধ্বসে পড়েছে শিক্ষাব্যবস্থা। নড়বড়ে অবস্থা দেশের অর্থনীতি। পাঁচ মাসের অধিক সময় ধরে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। অবরুদ্ধ যাপনে বাধ্য হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। বিশ্ব ব্যাংকের হিসাব মতে করোনায় দেশের জিডিপি ৮ শতাংশ হতে কমে দুই-তিন শতাংশে নেমে আসতে পারে।

প্রায় ৯ লক্ষ মানুষ কর্মসংস্থান হারাবে বলে আশংকা প্রকাশ করেছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক(এডিবি)। করোনা পরবর্তী সময়ে কর্পোরেট সেক্টর কিংবা স্টার্টআপ বিজনেসেও আসবে আমূল পরিবর্তন। সম্ভাব্য পরিবর্তনের সম্মুখ্যে দাঁড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কতটুকু প্রস্তুত ?সুনিশ্চিত ক্যারিয়ার গঠনে করোনাকালীন সময়কে যথাযথ ভাবে কাজে লাগানোই বুদ্ধিমানের কাজ।

গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করার পর প্রতিটি ফ্রেশার কে সরকারীর চাকরীর প্রস্তুতির জন্য প্রায় ৬ মাস সময় ব্যয় করতে হয়। আর যদি লক্ষ্য থাকে বিসিএস তাহলে সময়টা আরও তিন চার গুন বেড়ে যায়। করোনার মহামারীতে বাড়ীতে শুধু বসে না থেকে সরকারীর চাকরীর প্রস্তুতি নিন।অনলাইনেই এখন চাকরী প্রস্তুতির অনেক রিসোর্স পাওয়া যায়। এছাড়া স্থানীয় লাইব্রেরী হতে বেসিক ম্যাথ, ইংলিশ ফর কম্পিটিটিভ এক্সাম,আজকের বিশ্ব,লাল নীল দীপাবলি এর মত প্রয়োজনীয় বই গুলো সংগ্রহ করে পড়া শুরু করুন।

আপনি যদি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হোন তাহলে লকডাউনের সময়কে দারুন ভাবে কাজে লাগাতে পারেন। অন্তত যেকোন একটি টেকনিক্যাল স্কিলে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলুন।করোনা পরবর্তী সময়ে চাকরী প্রাপ্তির ক্ষেত্রে সেই স্কিল টা আপনাকে অনেক দূর এগিয়ে রাখবে।

আপনি যদি জেনারেল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী হোন তাহলে বেসিক সফটওয়্যার স্কিল আপনার জন্যও সমান জরুরী। করোনা পরবর্তী সময়ে কর্পোরেট সেক্টরের রিক্রুটমেন্ট পলিসিতে বেসিক সফটওয়্যার স্কিল অধিক গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হবে। মাইক্রোসফট ওয়ার্ড , মাইক্রোসফট এক্সেল, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ভিডিও এডিটিং কিংবা ডিজিটাল মার্কেটিং বিষয়ে অনলাইনেই ট্রেনিং নিতে পারেন অথবা ইউটিউবে ভিডিও দেখে নিজে নিজেই দক্ষ হতে পারেন।

আপনার লক্ষ্য যদি থাকে গ্রেজুয়েশন সম্পন্ন করে বিদেশে উচ্চ শিক্ষার জন্য পাড়ি জমাবেন তাহলে করোনাকালই প্রস্তুতি নেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ। আইএলটিএস,জিআরই কিংবা টোফেল সম্পর্কিত রিসোর্স সমূহ ডাউনলোড করে আজকেই পড়া শুরু করুন।ইউটিউবে নির্দিষ্ট একটি চ্যানেল ফলো করেও প্রস্তুতি নিতে পারেন। একই সাথে আপনার স্বপ্নের ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়ন বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের সাথে কমিউনিকেশন করুন, বিভিন্ন তথ্য জেনে নিজেকে আপ টু ডেট রাখুন।

বাংলাদেশের অধিকাংশ গ্র্জুয়েট চাকরীর হিসেবে কর্পোরেট সেক্টরকে বেছে নেয়। কিন্ত করোনা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের কর্পোরেট সেক্টরে হার্ড স্কিলের পাশাপাশি সফট স্কিলের দিকেও অধিক নজর থাকবে। কমিউনিকেশন স্কিল, লিডারশীপ, প্রেজেন্টেশন স্কিল, সম্পর্ক উন্নয়ন, সৃজনশীল ও বিশ্লেষণমূলক চিন্তাভাবনার মত সফট স্কিল গুলো অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে গণ্য হবে। করোনার এই দুঃসময়ে সফট স্কিল গুলো উন্নয়নে মনোনিবেশ করতে পারেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ে যুক্ত থাকা বিভিন্ন ক্লাব গুলোর কার্যক্রম কে অনলাইনে নিয়ে আসুন। বিভিন্ন ধরনের সৃজনশীল উদ্যোগ বাস্তবায়নের মাধ্যমে নিজের মনস্তাত্ত্বিক দক্ষতা কে উন্নত করুন। একই সাথে শুদ্ধ বাংলা ও ইংরেজি চর্চার মাধ্যমে প্রেজেন্টেশন স্কিলকেও বাড়িয়ে নিতে পারেন।

করোনা পরবর্তী সময়ে চাকরীর বাজারেও পরিবর্তন আসবে।কোম্পানি গুলোর কর্মী ছাটাইয়ের ধারা দেশ সুস্থ হলেও অনেকটা সময় অব্যাহত থাকবে। বেশির ভাগ জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে কোম্পানির কর্মীদের সুপারিশের মাধ্যমে। তাই এখন থেকেই নিজেকে প্রস্তুত রাখুন। নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র ভাইদের সাথে সম্পর্কের উন্নয়ন করুন। তাদের ফোন নাম্বার ,ইমেইল সংগ্রহ করুন। নিজের স্কিল,কাঙ্ক্ষিত চাকরীর মনভাব নিয়ে প্রায়শ আলোচনা করুন, আপনার সিভি টা তাকে দিয়ে রাখুন। তার অধীনে কোন ভ্যাকেন্সি খালি হলে আপনাকে নক দেওয়ার সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে।

অধিক বেকারত্বের দেশে নতুন করে ৯ লক্ষাধিক বেকার হওয়ার সম্ভাবনা নিশ্চিতভাবেই হুমকি স্বরূপ। তাই,শুধুমাত্র সরকারী চাকরি বা কর্পোরেট চাকরীর পিছনে না ছুটে নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তুলুন। আর স্টার্টআপ বিজনেস শুরু করার জন্য এখনি উপযুক্ত সময়।বিজনেস আইডিয়া, টিম মেম্বার, ইনভেস্টমেন্ট, মার্কেটিং পলিসি নিয়ে বিশ্লেষণ করা শুরু করুন। করোনা পরবর্তী সময়ে বিজনেস ইমপ্লিমেন্ট করে নিজের নিশ্চিত ক্যারিয়ার গড়তে সহায়ক হবে।

করোনার এই ভয়াল মহামারী থেকে একদিন স্বদেশ অবশ্যই মুক্তি পাবে। আবারো সবকিছু স্বাভাবিক ভাবে পুরদমে শুরু হবে। কি আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের সেমিস্টার ফাইনাল,থিসিস, ইন্টার্নশিপ সবকিছুই আগের মতই ফিরে আসবে। তাই সেই সময়কে সামনে রেখে এখন থেকেই পড়াশুনায় মনযোগী হোন। চলতি সেমিস্টারের পড়াশুনা গুছিয়ে রাখুন। অনলাইনে বিভিন্ন কোর্স করে নিজের সিভি ভারী করুন।

করোনা পরবর্তী সময়ে নিজের নিশ্চিত ক্যারিয়ার সহ দেশকে এগিয়ে নিতে হলে অবরুদ্ধ সময়টাকে যথোপযুক্ত ভাবে ব্যবহার করতে হবে। দেশের চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে প্রতিটি তরুণকেই নিজ নিজ অবস্থান হতে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

আমার ক্যাম্পাস/ঢাকা/আর এম

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর