1. amarcampus24@gmail.com : admin2020 :
আইসিজের আদেশ প্রত্যাখ্যান করল মিয়ানমার সরকার - AmarCampus24
শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১১ পূর্বাহ্ন

আইসিজের আদেশ প্রত্যাখ্যান করল মিয়ানমার সরকার

আমারক্যাম্পাস ২৪ ডটকম/অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২০

রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতন ও গণহত্যার অভিযোগে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) দেয়া অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ প্রত্যাখ্যান করেছে মিয়ানমার। বৃহস্পতিবার রাতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে আইসিজের দেয়া এই আদেশ প্রত্যাখ্যান করা হয়।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের চিত্র বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। অথচ মিয়ানমারে গঠিত স্বাধীন তদন্ত কমিশন রোহিঙ্গা গণহত্যার কোনো প্রমাণ পায়নি। তবে যুদ্ধাপরাধ হয়েছে বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। আর তা তদন্তের মাধ্যমে ফৌজদারি ব্যবস্থায় বিচার করা হবে। বিবৃতিতে আরো উল্লেখ করা হয়, মানবাধিকার সংস্থাগুলোর নিন্দার কারণে মিয়ানমারের সঙ্গে বেশ কয়েকটি দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে প্রভাব পড়েছে। এর মধ্য দিয়ে তারা মিয়ানমারের টেকসই উন্নয়নে বাধা দিচ্ছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দিতে মিয়ানমারের প্রতি চারটি অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেয় নেদারল্যান্ডসের হেগেতে অবস্থিত আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে গাম্বিয়ার দায়ের করা মামলার রায়ে এ আদেশ দেন বিচারপতি আবদুল কাভি আহমেদ ইউসুফ। আদেশে বলা হয়, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে বর্তমানে যেসব রোহিঙ্গারা আছেন তাদের সুরক্ষা দিতে দেশটিকে সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পাশাপাশি দেশটির সেনাবাহিনী বা অন্য কোন সশস্ত্রবাহিনী যেনো রোহিঙ্গাদের নির্যাতন, গণহত্যা বা উসকানি না দেয় সে বিষয়ে মিয়ানমারকে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

গণহত্যার সাক্ষ্যপ্রমাণ ধ্বংস করা যাবে না উল্লেখ করে আদেশে আরো বলা হয়, আগামী চার মাসের মধ্যে এসব রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় গৃহীত পদক্ষেপের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করতে হবে। পাশাপাশি গণহত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলাটি সম্পূর্ণ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত প্রতি ছয় মাস অন্তর অন্তর রোহিঙ্গাদের সুরক্ষার বিষয়ে আদালতকে অবহিত করতে হবে।

আমারক্যাম্পাস/ঢাকা/আর এম

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর